১৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
সিদ্ধিরগঞ্জে যে কাউন্সিলরা জয়ের হ্যাটট্রিক করেছেন যশোরের শার্শায় ইজিবাইক চালককে হত্যা করে বাইক ছিনতাই রাজাকার-স্বাধীনতাবিরোধীদের তালিকাসহ নতুন পেট্রোবাংলা আইন আসছে ইসি গঠন নিয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে চার প্রস্তাব দিলো আ’লীগ না‌রায়ণগঞ্জ সি‌টি নির্বাচন- ঐক‌্যবদ্ধ ১৮নং ওয়ার্ডবাসী নির্বা‌চিত কর‌লো মুন্না‌কে, নেপ‌থ্যে লাভলু-রানা না’গঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিজয়ী মেয়র ডাঃ সেলিনা হায়াত আইভীকে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের উষ্ণ অভিনন্দন বেনাপোল বন্দরে আমদানিকৃত পন্যবাহী ট্রাক থেকে হেলপারের লাশ উদ্ধার নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা ২৭টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর আগামী পাঁচ বছরের জন্য যারা নেতৃত্ব দিবেন নাসিক নির্বাচনে তৃতীয় বারের মত আইভী জয়ী
  • প্রচ্ছদ
  • ছবি ঘর >> টপ নিউজ >> লিড >> শিক্ষা
  • মণিরামপুরে নতুন বছরে পাঠ্যবই সংকট; বিপাকে শিক্ষার্থীরা
  • মণিরামপুরে নতুন বছরে পাঠ্যবই সংকট; বিপাকে শিক্ষার্থীরা

    নূরুল হক, মণিরামপুর প্রতিনিধি:

    চলতি বছরের শুরুতেই প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে বই বিতরণ করা হলেও যশোরের মণিরামপুরে মাধ্যমিক স্তরে ১২০ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা বই পায়নি। সপ্তম ও নবম শ্রেণির কিছু কিছু বই দেওয়া হয়েছে এবং ষষ্ঠ শ্রেণির দেওয়া হয়েছে মাত্র এক বিষয়ের বই। অন্যদিকে মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণির কোন বিষয়ের বই দেওয়া হয়নি। ফলে বই সংকট প্রকট আকার ধারন করায় শিক্ষার্থীরা পড়েছে মহাবিপাকে। তবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অচিরেই বই সংকটের সমাধান হবে বলে আশাপ্রকাশ করছেন।

    উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানাযায়, মণিরামপুর উপজেলায় মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে ১২০টি এবং মাদ্রাসা রয়েছে ৭০ টি। মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমুহে মোট শিক্ষার্থীও সংখ্যা ২৪ হাজার ৫২৭ জন এবং মাদ্রাসায় ৪ হাজার ২৬০ জন। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পহেলা জানুয়ারি সরকারের বিনামুল্যের নতুন বই শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হয়। তবে মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমুহের অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের মাঝে এখনও সকল শ্রেণির সব বিষয়ের বই বিতরণ করা সম্ভব হয়নি। দূর্গাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কেএইচএন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, হেলা ী কৃ বাটি মাধ্যমিকসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে আলাপ করে জানাযায়, পহেলা জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে বই বিতরণ করা হয়েছে। তবে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস থেকে সকল শ্রেণির সব বিষয়ের বই সরবরাহ করা হয়নি। বিভিন্ননমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কয়েকজন প্রধান শিক্ষক, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস থেকে এ পর্যন্ত বই সরবরাহ করা হয়েছে সপ্তম শ্রেণির ৮, নবম শ্রেণির ১১ এবং ষষ্ঠ শ্রেণির মাত্র ১ বিষয়ে বই পেয়েছেন। এ পর্যন্ত অষ্টম শ্রেণির কোন বই দেওয়া হয়নি। তারা জানান, একেতো দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাবে দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছিল বন্ধ। তার ওপর বছরের শুরুতে সকল শ্রেণির সব বিষয়ের বই দিতে না পারায় লেখাপড়ায় যেমন বিঘœ ঘটছে, তেমনি শিক্ষার্থীদের মধ্যে লেখাপড়ার প্রতি বেশ অনীহা দেখা দিচ্ছে। এ ব্যাপারে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা জানান, বই না পাওয়ায় ক্লাশ করা সম্ভব হচ্ছেনা। আবার ৬ষ্ঠ শ্রেণির কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, এ পর্যন্ত তারা মাত্র এক বিষয়ের বই (আইসিটি) পেয়েছেন। ফলে শুধুমাত্র আইসিটি ক্লাসেই তাদের সীমাবদ্ধ থাকতে হচ্ছে।

    তাছাড়া এ পর্যন্ত তার মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণির কোন বিষয়ের বই দেওয়া হয়নি। ফলে অষ্টম শ্রেণির ক্লাশ নেওয়া সম্ভব হচ্ছেনা বলে মণিরামপুরের কয়েকটি মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও সুপার জানিয়েছেন।।

    তবে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ চন্দ্র সরকার মাধ্যমিক পর্যায়ে বই সংকটের সত্যতা স্বীকার করে জানান, স্কুল-মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির জন্য এ পর্যন্ত মনিরামপুরে কোন বই সরবরাহ করা হয়নি। তিনি আশা করেন, অচিরেই অষ্টম শ্রেণিসহ অন্যান্য শ্রেণির বই সরবরাহ স্বাভাবিক হবে।

    আরও পড়ুন