৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
খুলনা জেলা ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে ইয়াবা ও গাঁজাসহ গ্রেফতার দুই ভোরের দর্পণের সার্কুলেশন ম্যানেজার ইখতিয়ার হোসেনের মা আর নেই বরিশাল নগরীতে মাদক ও সন্ত্রাসী মনির বাহিনীর হামলায় বাবা ও ছেলে আহত গাজীপুরের অন্তসত্ত্বা নারীর উপর সন্ত্রাসী হামলার মুন্সীগঞ্জে গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ: দুই সন্তানের পর দগ্ধ পিতার মৃত্যু দ.আফ্রিকায় ১ দিনেই ওমিক্রনে আক্রান্ত ১৬ হাজার কুড়িগ্রাম জেলা কৃষক দলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ সড়কের অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাল কার্ড নিয়ে আবারও আন্দোলনে নেমেছেন শিক্ষার্থীরা নীলফামারীর জঙ্গি আস্তানা থেকে দুই নারীসহ পাঁচজন আটক চিরিরবন্দর উপজেলায় আসন্ন ৫ম ধাপের ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন পেলেন যারা
  • প্রচ্ছদ
  • অন্যান্য >> অপরাধ >> আইন আদালত >> ছবি ঘর >> টপ নিউজ
  • মণিরামপুরে গর্ভধারনের চিকিৎসা দেয়ার কথা বলে গৃহবধুকে ধর্ষণের অভিযোগ, পল্লী চিকিৎসকসহ আটক-২
  • মণিরামপুরে গর্ভধারনের চিকিৎসা দেয়ার কথা বলে গৃহবধুকে ধর্ষণের অভিযোগ, পল্লী চিকিৎসকসহ আটক-২

    মণিরামপুর প্রতিনিধি: মণিরামপুরের পল্লীতে এক গৃহবধূকে গর্ভধারনের চিকিৎসা দেওয়ার কথা বলে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে পল্লী চিকিৎসক বিল্লাল হোসেনের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে গৃহবধূর ভাই বাদী হয়ে শনিবার রাতে পল্লী চিকিৎসক বিল্লাল হোসেন ও তার সহযোগী ইজিবাইক চালক দিন মোহাম্মদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। অভিযোগ রয়েছে এর আগে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে মিমাংসার উদ্যোগ নিয়ে ব্যর্থ হন স্থানীয় ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান। একপর্যায়ে এলাকাবাসী ধর্ষক ও তার সহযোগীকে আটক করে পুলিশে দেয়। আটক পল্লী চিকিৎসক হলো উপজেলার রোহিতা ইউনিয়নের কোদলাপাড়া গ্রামের ওয়াদুদ মিয়ার ছেলে বিল্লাল হোসেন ও বাগডোব গ্রামের হযরত আলীর ছেলে ইজিবাইক চালক দীন মোহাম্মদ।

    পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, রোহিতা বাজারে পল্লী চিকিৎসক বিল্লাল হোসেনের একটি চেম্বার রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে বিভিন্ন এলাকায় বিল্লাল হোসেনের বেশ কয়েকজন দালাল রয়েছে। এসব দালালদের বিশেষ কমিশনের মাধ্যমে রোগি জোগাড় করে বিল্লালের চেম্বারে আনা হয়।

    গত সোমবার দুপুরে ইজিবাইক চালক (দালাল) দীন মোহাম্মদ এলাকার এক গৃহবধুকে গর্ভধারনের চিকিৎসা দেওয়ার কথা বলে রোহিতা বাজারে বিল্লালের চেম্বারে নিয়ে আসে। এরপর বিভিন্ন কৌশলে বিল্লাল হোসেন ওই গৃহবধুকে বাজারের পাশে তার নিজের বাড়িতে নিয়ে যান। বাড়িতে অবশ্য এ সময় কেউ থাকার সুবাদে বিল্লাল হোসেন ওই গৃহবধুকে ধর্ষন করে। গৃহবধুর অভিযোগ, ধর্ষনের সময় বাড়ির সামনে অবস্থান করছিলেন ইজিবাইক চালক দীন মোহাম্মদ। কিন্তু তার আত্মচিৎকার শুনেও তাকে বাচাতে এগিয়ে আসেনি দীন মোহাম্মদ। পরবর্তিতে বিষয়টি জানাজানি হলে বিল্লালকে রক্ষা করতে ধর্ষনের ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে দু’পক্ষকে নিয়ে রোহিতা বাজারে মিমাংশার উদ্যোগ নেন ইউপি সদস্য মনিরুল ইসলাম। কিন্তু বিষয়টি মিমাংশা করতে ব্যর্থ হন মনিরুল ইসলাম। এক পর্যায়ে এলাকাবাসী পল্লী চিকিৎসক বিল্লাল ও তার সহযোগী দীন মোহাম্মদকে আটকের পর খেদাপাড়া পুলিশ ফাড়িতে সোপর্দ করে। ওই রাতেই গৃহবধুর ভাই বাদি হয়ে থানায় বিল্লাল হোসেন ও দীন মোহাম্মদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ইউপি সদস্য মনিরুল ইসলাম জানান, ধর্ষনের বিষয়টি তিনি মিমাংশার উদ্যোগ নিলেও বিভিন্ন কারনে তা সফল হয়নি।
    মণিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর ই আলম সিদ্দিকী জানান, আটক দুজনকে রোববার আদালতে চালান দেওয়া হয়। এছাড়া ভিকটিমকে উদ্ধারের পর আদালতে জবানবন্দি রেকর্ড ও ডাক্তারের কাছে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

    আরও পড়ুন