১৬ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহন চলছে, ভোটারদের উপস্থিতি কম অমিক্রন প্রতিরোধে বেনাপোল ইমিগ্রেশন উদাসীন ! “৮ মাসের শিশু” অপহরণের ৭২ ঘন্টার মধ্যে ঢাকার উত্তরা থেকে উদ্ধার অনলাইন নয়, জবিতে ক্লাস চলবে সশরীরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মিছিল ও জনসংযোগ করেন সাপাহার মডেল প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন : সভাপতি মনিরুল, সম্পাদক নিখিল মাদারীপুরে প্রধান শিক্ষিকার নামে অনিয়মের অভিযোগ!! ব্যবস্থা নিচ্ছেনা স্থানীয় প্রশাসন শার্শা সদর ইউনিয়নে নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সদস্যদের দায়িত্বভার গ্রহন ঢাবিতে ‘সেকেন্ড টাইম’ পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের অবস্থান জনপ্রতিনিধিরা জনগনের নিকট দায়বদ্ধ – আনোয়ার হোসেন
  • প্রচ্ছদ
  • করোনা ভাইরাস >> ছবি ঘর >> জাতীয় >> টপ নিউজ >> লিড
  • বাংলাদেশের করোনার টিকার সনদ অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্য
  • বাংলাদেশের করোনার টিকার সনদ অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্য

    ছবি: প্রতীকী

    আগামী সোমবার (১১ অক্টোবর) স্থানীয় সময় ভোর ৪টা বাংলাদেশের করোনার টিকার সনদ অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্য।বাংলাদেশের করোনার টিকার সনদ দেশটিতে কার্যকর হবে। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের নাম যুক্ত হলো যুক্তরাজ্য সরকারের টিকা তালিকায়।

    বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন জানান, বাংলাদেশ মিশন যুক্তরাজ্যের সাথে যোগাযোগ করে টিকা তৈরির প্রক্রিয়া বর্ণনা করেছে। এরপরেই যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের টিকার সনদ অনুমোদন করে। এই অনুমোদন কার্যকর হবে আগামী সোমবার (১১ অক্টোবর) থেকে।

    যুক্তরাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বাংলাদেশি নাগরিকদের পূর্ণ ডোজ টিকা নেয়া থাকলে ১১ অক্টোবর থেকে দেশটিতে প্রবেশের পর ১০ দিন হোটেল কোয়ারেন্টাইন বা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না। তবে দেশটিতে পৌঁছানোর দু’দিন পর তাদের কোভিড-১৯ টেস্ট করাতে হবে। এর পাশাপাশি টিকা গ্রহণের প্রমাণ হিসেবে সব ভ্রমণকারীরই বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দেয়া টিকার সার্টিফিকেটের প্রয়োজন পড়বে।

    তবে যেসব ভ্রমণকারী যুক্তরাজ্যের অনুমোদিত টিকার পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেননি তাদের অবশ্যই দশ দিনের হোটেল কিংবা বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এছাড়া দ্বিতীয় এবং অষ্টম দিনে তাদের করোনা পরীক্ষা করাতে হবে।

    যুক্তরাজ্য এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের চারটি টিকাকে অনুমোদন দিয়েছে। এগুলো হচ্ছে—অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, মডার্না, ফাইজার-বায়োএনটেক ও জনসন অ্যান্ড জনসন।

    আরও পড়ুন