২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
দুর্নীতিবাজরা যাতে শাস্তি পায় দুর্নীতি দমন কমিশন এর প্রতি আহ্বান : রাষ্ট্রপতি খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ল আরও ৬ কুমিল্লায় বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ গোলাগুলিতে আহত ১৫ কপিরাইট আইন লঙ্ঘনের মামলা করতে আদালতে গেলেন জেমস আফগানিস্তানে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক চলাকালীন সময়ে মোল্লা আবদুল ঘানি বারাদারকে অপর মন্ত্রী খলিলুর রহমান হাক্কানি ঘুষি পুলিস সুপারের হস্তক্ষেপ দাবী: ঋতু ও সাথী’র প্রতারনার হাত থেকে বাচঁতে অসহায় পরিবারের আকুতি শাফিনকে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান করা হয়েছে বাঘের তাড়া কিংবা খাদ্যের সন্ধানে মায়া হরিণ লোকালয়ে বাংলা চলচ্চিত্রের উজ্জ্বল নক্ষত্র সালমান শাহ বেঁচে থাকলে ৫০ বছরে পা রাখতেন আলিয়ার ভক্তদের জন্য বিজ্ঞাপনের ভিডিও শেয়ার করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে : আলিয়া
  • প্রচ্ছদ
  • ছবি ঘর >> জাতীয় >> ঢাকা >> দেশজুড়ে >> মিডিয়া
  • মিরপুর সম্মিলিত সাংবাদিক জোটের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচী পালন
  • মিরপুর সম্মিলিত সাংবাদিক জোটের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচী পালন

    বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক ও নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রধান নির্বাহী (সিইও) নঈম নিজাম, কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, ডেইলি সান পত্রিকার সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী, বাংলা নিউজের সম্পাদক জুয়েল মাজহার, বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিবেদক সাইদুর রহমান রিমন, রিয়াজ হায়দার, মোহাম্মদ সেলিম, কালের কণ্ঠের প্রতিবেদক এস এম রানা, বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান- এমডিসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে ৫০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

    মানববন্ধন কর্মসূচী স্বতস্ফূর্তভাবে বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তির একাত্নতা প্রকাশে জনসমুদ্রে রূপ নেয়। সহস্রাধিক মানুষের এই কর্মসূচীতে বিভিন্ন ব্যানার ও প্লেকার্ড নিয়ে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে অংশ নিতে দেখা যায়।

    শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় রাজধানীর মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বরে মিরপুর সম্মিলিত সাংবাদিক জোটের পক্ষে এই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

    মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন, ইনকিলাব পত্রিকার সাংবাদিক ও বাংলাদেশ মেডিকেল রিপোটার্স এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক এবং বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোটার্স এ্যাসোসিয়েশানের সাবেক অর্থ সম্পাদক আজিজুল হাকিম। মানব বন্ধনটি সঞ্চালনা করেন, সাংবাদিক নেতা এসএম জহিরুল ইসলাম।

    সভাপতির বক্তব্যে সাংবাদিক নেতা আজিজুল হাকিম বলেন, দেশের এমন কোনো অঞ্চল নেই যেখানে সাংবাদিকরা নির্যাতিত হচ্ছেন না। তারই সুবাদে বিশিষ্ট ১১ জন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে তা যেন সাংবাদিকদের আরও হেয় করার জন্য। আপনাদের এ ষড়যন্ত্র কখনোই সফল হবে না। আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে এ মামলা প্রত্যাহার করে যদি ক্ষমা না চান, তবে আরও তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

    বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দৈনিক সোনালী খবর পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মোঃ মনিরুজ্জামান মিয়া বলেন, সম্পাদক ও প্রকাশকদের বিরুদ্ধে হয়রানীমূলক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। হয়তো কলমের পাশাপাশি রাজপথে নামা ছাড়া বিকল্প নেই।

    মানববন্ধনে ইংরেজি দৈনিক ‘দ্য এক্সাম্পল’ এর সম্পাদক মিজানুর রহমান মোল্লা বলেন, অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে দুর্নীতির খবর প্রকাশ করায় স্বনামধন্য সম্পাদক ও সাংবাদিকদের মামলার আসামি করা অত্যন্ত নিন্দনীয় ও উদ্বেগের বিষয়। এ ধরনের মামলা স্বাধীন সাংবাদিকতা ও মুক্ত গণমাধ্যমসহ সাংবাদিকদের নিরাপত্তার জন্য হুমকি স্বরূপ। এটা যেন দুর্গন্ধযুক্ত মানুষ মামলা করেছে ক্লিন সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে। এটা আমরা মেনে নিতে পারি না। আর সেজন্যই আমরা গণমাধ্যমকর্মীরা এর বিরুদ্ধে অবস্থান করছি।

    নতুন বার্তা পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান মনির বলেন, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলা করা হয়েছে এবং তার প্রতিবাদে আমরা মানববন্ধন করছি। এটা নিয়েও আজ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হচ্ছে। সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে সোজা ভাষায় বলি- আপনারা প্রোপাগান্ডা ছড়াবেন না। দালালি আর সাংবাদিকতা একসঙ্গে হয় না। আপনি কোটি টাকার চাঁদাবাজি করতে পারেন, আর আমরা তা লিখলেই দোষ। আপনার সঙ্গে থাকলে সঙ্গী, না থাকলে জঙ্গি, এমনটা আপনি ভাবতে পারেন। কিন্তু সুষ্ঠু ধারার সাংবাদিক এটা ভাবে না।

    প্রতিদিনের বাংলাদেশ প্রত্রিকার প্রতিবেদক কামরুল হাসান ভূঁইয়া সোহাগ বলেন, যারা সাংবাদিকদের ভুঁইফোড় বলে আখ্যায়িত করেন, আমাদের আজকের অবস্থান তাদের বিরুদ্ধে। সাংবাদিকদের কেউ মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করলে আমরা বসে থাকবো না। তীব্র প্রতিবাদ ও আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

    দৈনিক মাতৃজগৎ পত্রিকার সম্পাদক সেলিম খান বলেন, সংবাদপত্রকে কখনো হামলা-মামলা দিয়ে বন্ধ করা যাবে না। এ মামলা প্রত্যাহার করে মামলাকারীদের ক্ষমা চাইতে হবে। যতদিন পর্যন্ত তারা মামলা প্রত্যাহার করে ক্ষমা না চাইবে, ততদিন পর্যন্ত টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়ায় আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

    আয়োজনে রাজধানীর মিরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ম. চঞ্চল মাহমুদ এ মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা প্রকাশ করে বলেন, দেশের শীর্ষ স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের সুনাম ক্ষুণ্ন করার জন্য যারা এ মিথ্যা মমলা করেছেন, তাদের ষড়যন্ত্র কখনো সফল হবে না। একইসঙ্গে মিথ্যা মামলার মাধ্যমে রাষ্ট্র ও সমাজকে বিতর্কিত না করার অনুরোধ জানাচ্ছি আমরা।একই ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রিপন বলেন, জাতির বিবেক সাংবাদিকদের বিরোদ্ধে এই ধরনে মিথ্যা মানহানি মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

    মানববন্ধনে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- মিরপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রিপন, জাগো কণ্ঠের সম্পাদক মো. আলী মুবিন, সংবাদ মোহনার সিনিয়র রিপোর্টার মো. মোমিন, মুভি বাংলার স্টাফ রিপোর্টার রাজু আহমেদ, টুয়েন্টিফোর লাইভের প্রতিবেদক মোকলেস খান, দৈনিক সোনালী খবরের সম্পাদক মনিরুজ্জামান মিয়া, প্রতিবেদক মো. দীন ইসলাম, দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের প্রতিবেদক এনামুল হক ইমন, দৈনিক সকালের সময় পত্রিকার প্রতিবেদক সাজেদুর রহমান সাজু, সিএনবিডির সম্পাদক এস এম ইমন, দৈনিক বাংলাদেশের সংবাদ পত্রিকার প্রতিবেদক বাহাউদ্দিন তালুকদার, প্রতিদিনের ডাক.কমের সম্পাদক মো. সোহাগ, দৈনিক উচ্চকণ্ঠ পত্রিকার প্রতিবেদক রাকিবুল হাসান রনি, দৈনিক সকালের সময় পত্রিকার প্রতিবেদক এস এম আর শহীদ, বিশিষ্ট সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম, গোলাম মর্তুজা পাপ্পু প্রমুখ। আয়োজন সমন্বয় করেন দৈনিক বাংলাদেশের আলো পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার এস এম জহিরুল ইসলাম।

    মানববন্ধন থেকে সম্প্রতি সংবাদ প্রকাশের ঘটনায় চট্টগ্রামের আদালতে হুইপ শামসুল হক চৌধুরীর সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ষড়যন্ত্রমূলক এ মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের জোর দাবি জানানো হয়।

    এর আগে গত ১৮ আগস্ট কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, ইংরেজি দৈনিক ডেইলি সানের সম্পাদক ইনামুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক ও নিউজটোয়েন্টিফোরের সিইও নঈম নিজাম, বাংলানিউজের সম্পাদক জুয়েল মাজহারসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামে ৫০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করা হয়।

    আরও পড়ুন