২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
ভূমি জালিয়াতির আখড়া কেরাণীগঞ্জ রেকর্ড বহির্ভূত জাল দলিলেই হচ্ছে নামজারি সাংবাদিক সুরক্ষা আইন প্রণয়নের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান সাম্প্রদায়িত সম্প্রীতি রক্ষায় মহানবী (সা.)’র আদর্শ সুমহান : ন্যাপ মহাসচিব সাংবাদিক জনি’র চীর বিদায় শেখ রেহানাকে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া উচিত বলে মন্তব্য : ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী খুলনা জেলা ডিবি পুলিশের অভিযানে ফুলতলা হতে ৫ লিটার দেশী মদসহ গ্রেফতার ১ ঝিনাইদহে নিখোঁজ ইজিবাইক চালকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার আগাম আলু চাষিদের স্বপ্ন এখন গুড়েবালি শ্বশুরবাড়ির অমানুষিক নির্যাতনে মিঠুনের মৃত্যু ৯৬ রানে অলআউট বিপর্যয়ে লঙ্কানরাও
  • প্রচ্ছদ
  • এক্সক্লসিভ >> করোনা ভাইরাস
  • চলে গেলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক আইন মন্ত্রী, কুমিল্লা-৫(বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের ৫ বারের সাংসদ,
  • চলে গেলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক আইন মন্ত্রী, কুমিল্লা-৫(বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের ৫ বারের সাংসদ,

    মোঃ আবদুল্লাহ,বুড়িচংঃ

    চলে গেলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক আইন মন্ত্রী, কুমিল্লা-৫(বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের ৫ বারের সাংসদ, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট আবদুল মতিন খসরু করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪ঃ০০ঘটিকায় ইহলোক ত্যাগ করেছেন।
    ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন ।
    মৃত্যুকালে ওনার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর ।


    ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য হবার মধ্য দিয়ে এই জনপদের প্রতিনিধি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন এডভোকেট আবদুল মতিন খসরু । ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে তিনি আইন,বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী নির্বাচিত হন।
    তারপর ২০০৮,২০১৪ ও সর্বশেষ ২০১৯ সালের নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

    এইদেশের বিচার বিভাগে সবচেয়ে বেশি আলোচিত হয়েছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সাবেক আইন মন্ত্রী হিসেবে যিনি কুখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিলের উদ্যোগ গ্রহণ করে জাতির জনকের হত্যার বিচারের পথ উন্মুক্ত করেছিলেন। এছাড়া বর্তমানে আইন,বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন । দলের আইন বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন ।

    একজন রাজনীতির পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিত্ব, এলাকার মানুষের অন্তঃপ্রাণ হিসেবে পরিচিত খসরু সাহেব১৯৫০ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলায়(বর্তমানে ব্রাহ্মণপাড়া) মাধবপুর ইউনিয়নের মীরপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মোঃ আবদুল মালেক এবং মাতা জাহানারা বেগম,তারা চার ভাই এক বোন৷ আব্দুল মতিন খসরু ব্যক্তিজীবনে এক ছেলে এক মেয়ের জনক।

    আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন রাজনীতিবিদ খসরু সাহেব দলের নীতি নির্ধারনী ফোরামের সর্বোচ্চ স্থান প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবেও বেশ সুনামের সাথে কাজ করে গেছেন । একজন সিনিয়র আইনজীবী হিসেবে দেশে বিদেশে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন তিনি।

    বহু স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, কারিগরি ইন্সটিটিউট সহ অনেক বেকার ছেলে মেয়ের কর্মসংস্থান ওনার হাত ধরে হয়েছে , এই ওসিলায় ওনাকে যেন জান্নাত নসিব করেন সেই কামনা রইল ।

    ১৯৭৩ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত দুই খ্যাতিমান ব্যক্তি, জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করে কুমিল্লা-৫ আসনের জনপ্রতিনিধিত্ব করেছেন একেবারে সাধারণ গ্রামের সাধারণ পরিবার থেকে উঠে । এডভোকেট আবদুল মতিন খসরু এবং অধ্যাপক মোঃ ইউনুস আমাদের ছেড়ে এই জনপদের মানুষ দের একা রেখে ইহকালে চলে গেছেন ।

    উল্লেখ যে, একই বছর অর্থাৎ গত মাসে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সাবেক সাংসদ এবং ৪ বারের সাবেক সাংসদ অধ্যাপক মোঃ ইউনুস ও ইহকাল ত্যাগ করেন ।
    এই দুই জনপ্রিয় জনপ্রতিনিধির মৃত্যুতে কুমিল্লার বুড়িচং – ব্রাহ্মণপাড়ার মানুষ শোকাহত ।।

    আরও পড়ুন