২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
ভূমি জালিয়াতির আখড়া কেরাণীগঞ্জ রেকর্ড বহির্ভূত জাল দলিলেই হচ্ছে নামজারি সাংবাদিক সুরক্ষা আইন প্রণয়নের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান সাম্প্রদায়িত সম্প্রীতি রক্ষায় মহানবী (সা.)’র আদর্শ সুমহান : ন্যাপ মহাসচিব সাংবাদিক জনি’র চীর বিদায় শেখ রেহানাকে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া উচিত বলে মন্তব্য : ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী খুলনা জেলা ডিবি পুলিশের অভিযানে ফুলতলা হতে ৫ লিটার দেশী মদসহ গ্রেফতার ১ ঝিনাইদহে নিখোঁজ ইজিবাইক চালকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার আগাম আলু চাষিদের স্বপ্ন এখন গুড়েবালি শ্বশুরবাড়ির অমানুষিক নির্যাতনে মিঠুনের মৃত্যু ৯৬ রানে অলআউট বিপর্যয়ে লঙ্কানরাও
  • প্রচ্ছদ
  • Uncategorized >> অন্যান্য >> চট্টগ্রাম >> টপ নিউজ >> ব্যবসা বানিজ্য
  • চৌদ্দগ্রামে নিত্যপণ্যের বাজার লাগামহীন,ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে সাধারণ মানুষের।
  • চৌদ্দগ্রামে নিত্যপণ্যের বাজার লাগামহীন,ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে সাধারণ মানুষের।

    আনিছুর রহমান ঃ
    কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে নিত্যপণ্যের বাজার যেন লাগামহীন , সব ধরণের সবজির বাজারে আগুন লাগায় ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে সাধারণ মানুষের। দিশেহারা সাধারন মানুষ,

    গত এক সাপ্তাহে সবজির দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ২৫/৩০ টাকা। কাঁচা মরিচ, আলু, করলা, টমেটো, শিম, ঝিংগাসহ সব সবজির মূল্য দ্বিগুণ হয়েছে বলে জানিয়েছে সাধারন ক্রেতারা।

    ছোট-বড় বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে কাঁচা মরিচ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২২০/২৪০ টাকা দরে। প্রতি কেজি খুচরা আলু ৪৫/৫০ টাকা, শীম ১০০/১২০, টমেটো ১০০/১৩০, শশা ৫০/৬০, চালকুমড়া মাঝারী পিচ ৪৫, পটল ৬০/৭০, ঢেড়স ৪৫/৫৫, ঝিঙ্গা ৫০/৬০, করলা ৮০/১০০, বেগুন ৮০/১০০, ফুলকপি ১০০/১২০টাকা, কাকরল ৯০/১০০, পেঁপে ৩০/৪০, কচুমুখী ৪০/৫০, কাঁচকলা হালি ৩০/৩৫, লেবু হালি ৩৫/৪০, লাল শাক ৪০/৫০ আঁটি, পুইশাক ৪০/৫০ টাকা আঁটি দরে বিক্রি হচ্ছে। মাসকলাই ৭৫/৮০ টাকা, মসুর ডাল (মোটা) ৭০/৭৫ টাকা, (ছোট দানা) ১০০/১২০ টাকা, আদা ১০০/১২০, রসুন ৯০/১০০ টাকা, পেয়াজ প্রকার ভেদে ৯০/১১০ টাকা। তবে ভোজ্য তেলের দাম লিটার ১১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

    চালের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রকার ভেদে বস্তা প্রতি ১০০/৩০০ টাকায় বেড়েছে। এ বাড়তি দামের কারন হিসাবে পাইকারী আড়ৎদারকে দায়ী করছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা।
    আর ব্যবসায়ী আবুল কালাম বলেন, আমরা চাউলে প্রতি বস্তায় ১০০-৫০ টাকা লাভকরছি। এর বেশি কিছু না, পাইকারী ব্যবসায়ীরা আমাদের থেকে বেশি রাখছে।

    আরও পড়ুন