Breaking News
Home / জাতীয় / ২৫ বছর ধরে প্রতি একুশের আল্পনায় শিক্ষ্যার্থীদের রংতুলির আঁচড়ে অপরূপ সেজে উঠে চাষাঢ়ার শহীদ মিনার

২৫ বছর ধরে প্রতি একুশের আল্পনায় শিক্ষ্যার্থীদের রংতুলির আঁচড়ে অপরূপ সেজে উঠে চাষাঢ়ার শহীদ মিনার

একুশে ফেব্রুয়ারী উপলক্ষ্যে নারায়গঞ্জ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার প্রাঙ্গণ জুড়ে আল্পনার শুরুটা ১৯৯৬ সাল। সেই থেকে বিগত ২৫ বছর ধরে প্রতি একুশের আল্পনায় নিরবিচ্ছিন্নভাবে অংশগ্রহণ করে আসছে নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইন্সটিউটের শিক্ষার্থীরা । তারই প্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে শিক্ষ্যার্থীদের রংতুলির আঁচড়ে অপরূপ সেজেছে চাষাঢ়ার শহীদ মিনার প্রঙ্গণ। সৌন্দর্য বর্ধনে শহীদ মিনারসহ আশেপাশের রাস্তায় রং এর তুলিতে রাঙ্গানো হচ্ছে নানা চিত্রকর্ম।

এ প্রসেঙ্গে নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইন্সটিউটের ( আর্ট কলেজ) অধ্যক্ষ্য মো: সামছুল আলম আজাদ এস এস টিভি কে জানান, একুশে ফেব্রুয়রীকে কেন্দ্র করে ঐতিহদাসিক ভাষা আন্দোলনের রক্তাক্ত সংগ্রামের ভেতর দিয়ে বাঙালির জাতিসত্তায় যে চেতনার জম্ম হয়েছিলে, তা ছিল এক অবিনাশী চেতনা। এই দিনটিকে ঘিরে গত ২৫ বছর ধরে আল্পনা অঙ্কন করে আসছে নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইন্সটিউটের শিক্ষার্থীগণ। তারই ধারাবাহিকতায় শিক্ষার্থীদের হাত ধরে নানা রং এর তুলিতে এবারো রঞ্জিত হচ্ছে চাষাঢ়ার শহীদ মিনার প্রঙ্গণ। সেই সাথে মিনারের আশেপাশের রাস্তা জুড়ে নানা রং এর তুলিতে রাঙ্গানো হচ্ছে চিত্রকর্ম।

নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইন্সটিউটের প্রথম ব্যাচের ছাত্র বিপ্লব সাহা বলেন, আমরাই প্রথম এই চাষাঢ়ার শহীদ মিনার প্রঙ্গণে একুশের আল্পনা করি । তখন সারা রাত জেগে আমরা আল্পনা করতাম।

অর্নাস প্রথম ব্যাচের ছাত্র জয় বলেন, বাঙালির জাতীয় জীবনে একুশে ফেব্রুয়ারি ইতিহাসের স্মরণীয় দিন। এই দিনে ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছিল বাঙালা মায়ের ছেলেরা। নিজের জীবন দিয়ে আমাদের প্রিয় মাতৃভাষাকে পৃথিবীর বুকে চিরউজ্জ্বল করে রেখেছেন।


বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষার স্মৃতি-চিহ্নিত এই দিনটি সংগ্রামের জ্বলন্ত অগ্নিশিখায় উজ্জ্বল এবং রক্তাক্ত আত্মত্যাগের মহিমায় ভাস্বর। এ দিনটি কেবল ইতিহাসের একটি বিবর্ণ তারিখ নয়, তা এমন একটি দিন যা আমাদের জাতীয় ইতিহাসের ধারায় নিরন্তর গতিময়, প্রাণবন্ত ও তাৎপর্যপূর্ণ।

Check Also

ঈদের বন্ধের মধ্যেও বেনাপোল বন্দর দিয়ে ১৭৯ টন অক্সিজেন আমদানি

বেনাপোল প্রতিনিধি : ঈদের বন্ধের মধ্যেও বেনাপোল-পেট্রোপোল বন্দর দিয়ে জরুরি সেবার অংশ হিসেবে বেনাপোল বন্দর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *