Breaking News
Home / প্রধান সংবাদ / মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

নারায়ণগঞ্জ শহরের ঐতিহ্যবাহি ৫৩৯ বছরের পুরাতন মন্ডলপাড়া জামে মসজিদের ওয়াকফ এস্টেটের প্রায় ৮৩ শতাংশ জায়গায় স্থাপনা ভাংচুর, দখলের চেষ্টা ও অবৈধভাবে বাণিজ্যিক করণের মাধ্যমে পার্ক ও মার্কেট নির্মানের দীর্ঘদিন ধরে অপচেষ্টা চালাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী। এ বিষয়ে আদালতে অভিযোগ করে মসজিদের জমির ওপর আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা আদেশ দিয়েছে বলে জানায় মসজিদ কমিটি । গতকাল শনিবার বিকাল ৩ টায় নারায়ণগঞ্জ শহরেরর চাষাঢ়া রাইফেল ক্লাব মিলায়তনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক রিয়াজউদ্দিন আহমেদ।

তিনি অভিযোগ তুলে বলেন, শহরের মন্ডলপাড়ায় মোগল আমলের প্রায় ৫৩৯ বছর পূর্বে বাবরীয় আমলে মোঘলরা সেখানে একটি মসজিদ নির্মাণ করেছিলেন। আমাদের পূর্ব পিতামহ মরহুম মীর শরিয়ত উল্লাহর পূর্ব পুরুষ ও তার পরবর্তী বংশধররা এই মসজিদ ও আশপাশের জমি খাদেমী সুত্রে দেখভাল করছেন কয়েকশত বছর ধরে। ১৯৩৫সালে ঐ মসজিদ ও আশ পাশের মোট ৮২.৯০ শতাংশ জায়গা মরহুম মীর শরিয়ত উল্লাহ ওয়াকফ এস্টেট হিসেবে তালিকাভুক্ত( নং ২০৪০) হয় এবং ব্রিটিশ পর্চা( সিএস ৩২০দাগ) অনুযায়ী মার্কেট ১৬শতাংশ জমি পাকা মসজিদ হিসেবে লিপিবদ্ধ হয়। পাশাপাশি (সিএস ৩২১দাগ) অনুযায়ী বাকি জায়গাটি শরিয়ত উল্লাহর বংশধরদের নামেই লিপিবদ্ধ হয়।

পরবর্তীতে পাকিস্তান আমলে তথা এস এ পর্চা অনুয়ায়ী (এস এ ৫৬৬ ও ১৯৩) জায়গাটি শরিয়ত উল্লাহর বংশধরদের ও মসজিদের নামেই লিপিবদ্ধ হয়। একই ভাবে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আর এস পর্চাতেও (আর এস ৭০৬, ৭০৭) উক্ত ৮২.৯০ শতাংশ জমি মসজিদ কমিটি ও এস্টেটের নামেই লিপিবদ্ধ হয়েছে। ১৯৮৮ সালের বন্যায় মসজিদটি পানিবন্দি হয়ে যাওয়ার পর পূননির্মানের প্রয়োজন হলে প্রাচীন মসজিদটিকে স্মৃতি হিসেবে রেখে নতুন একটি মসজিদ নির্মাণ করা হয় এবং এর সমস্ত ব্যয় ভার মীর শরিয়ত উল্লাহ এস্টেটের পক্ষ থেকেই বহন করা হয়।

তিনি অভিযোগ তুলে বলেন, মন্ডলপাড়া মসজিদ ও মসজিদ সংলগ্ন বিভিন্ন দাগে ৮২ দশমিক ৯০ শতাংশ মীর শরিয়ত উল্লাহ (মন্ডলপাড়া জামে মসজিদ) ওয়াক্ফ এস্টেট রয়েছে। এই এস্টেট থেকে ৪৩ শতাংশ জমি নারায়ণগঞ্জ জেলা মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের জন্য দেওয়া হয়েছে। বাকি ৪০ শতাংশের মতো জমি দখলের অপচেষ্টা চালাচ্ছেন বলে সিটি মেয়রের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়।

এদিকে জমি দখলের অপচেষ্টার অভিযোগ তুলে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি জেলা সহকারী জজ চতুর্থ আদালতে একটি মামলা করেন মসজিদের মোতাওয়াল্লি মো. সাখাওয়াত উদ্দিন। তিনি মামলায় বিবাদী করেছেন ঠিকাদার জাকির হোসেন, মো. ইকবাল ও মো. এহসানকে। চতুর্থ বিবাদী করা হয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে।

 

 

Check Also

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি- প্রযোজক রাজের বিরুদ্ধে হচ্ছে ৩ মামলা

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনির বিরুদ্ধে মাদকের মামলা ও প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজের বিরুদ্ধে মাদক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *