Breaking News
Home / আইন ও আদালত / মুলাদীতে হামলার ঘটনায় আদালতে মামলা, গ্রেপ্তার হয়নি আসামিরা

মুলাদীতে হামলার ঘটনায় আদালতে মামলা, গ্রেপ্তার হয়নি আসামিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : বরিশাল জেলার মুলাদী উপজেলা ২১শে এপ্রিল বিকালে বিদেশ পাঠানোর কথা বলে সেকেন্দার আলী বেপারী, রুবেল পাটোয়ারী কাছ থেকে আড়াই লক্ষ টাকা নেয় ওই টাকা চাইতে গেলে সেকেন্দার আলী বেপারী সন্ত্রাস বাহিনী হামলা ঘটনায় ৭ বিরুদ্ধে মামলা।রানী বেগম গত (০২ মে) মোকাম বরিশাল বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুলাদী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন ৭ জনকে আসামী করে। আসামিরা হলো ১। সেকেন্দার আলী বেপারী (৫৫) পিতা মৃত আব্দুল কাদের বেপারী, ২। ইব্রাহিম বেপারী(৩৫)৩। এমদাদুল বেপারী (২৫) উভয় পিতা সেকেন্দার আলী বেপারী।

৪। ইউনুছ বেপারী(৪৫) পিতা-মৃত কাদের বেপারী। ৫। সোহাগ বেপারী(৩৫) পিতা-মৃত খলিল বেপারী, ৬। চান মিয়া বেপারী, (৩৫) পিতা মোখলেছ বেপারী,৭ সালাম বেপারী (৩২) পিতা নুরু বেপারী, উভয় ঠিকানা, চর লক্ষ্মীপুর ৭ নং ওয়ার্ড থানা মুলাদী, জেলা বরিশাল সহ অজ্ঞাতনামা ৪-৫ জন আসামি করা হয়েছে।ওই মামলাটি আমলে নিয়ে আদালতের বিচারক জনাব মোঃ এনায়েত উল্লাহ, মামলাটি আমলে নিয়ে ফৌজদারী কার্যবিধি আইনে ,১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৪২৭/৫০৬(২) ধারা মোতাবেক এফআইআর হিসাবে নেওয়ার জন্য মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর আদেশ দিয়েছেন আদালত। সি আর মামলা নং-৬৪/২০২১ ইং। এদিকে মামলায় বলা হয়েছে আসামিরা সন্ত্রাস চাঁদাবাজি প্রতারক প্রতারণার মাধ্যমে বিদেশের কথা বলে মানুষের টাকা আত্মসাৎ করা আসামিদের নেশা ও পেশা । টাকা চাইতে গেলে আসামিরা মানুষকে হত্যা করতে পারেন এভাবে একাধিক অভিযোগ রয়েছে আসামিদের বিরুদ্ধে ।

মুলাদী থানায় আদালতের আদেশে এজাহার নেওয়ার পরেও এখনো পর্যন্ত গ্রেফতার হয়নি একজন আসামীও প্রকাশ্য দিবালোকে আসামিরা ঘুরে বেড়াচ্ছেন নীরব ভূমিকায় প্রশাসন বাহিনী অপরদিকে মামলার বাদী রানী বেগমকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য ও তার সব পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি।বাদি রানী বেগম আরো বলেন আমি আদালতে মামলা করেছি এখনও পর্যন্ত আমার ছেলের রক্তের বিচার পাইনি । অপরদিকে সেকেন্দার আলী বেপারী সন্ত্রাস বাহিনী আমাকে মামলা তুলে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন লোকের দ্বারা হুমকি দিয়ে আসছেন আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি। তিনি আরো বলেন আমার ছেলে প্রায় তিন লক্ষ টাকা মেরে খেয়েছে সেকেন্দার আলী বেপারী। দেশে কি ন্যায়বিচার পাওয়ার জন্য দিনের পর দিন থানার বারান্দায় বারান্দায় ঘুরে বেরিয়েছি নিরুপায় হইয়া আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়েছি। তারপরেও আদালতের আদেশ অমান্য করে এখনো একজন আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়নি । কবে পাবো ন্যায়বিচার একমাত্র আল্লাহই জানে আমরা গরীব নাই কোনো শক্তি তাই আমরা ন্যায় বিচার এখনো পাইনি আজ আমার ছেলেকে কুপিয়ে টাকা আত্মসাৎ করে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে সেকেন্দার আলী সন্ত্রাস বাহিনী। এই বলে রানী বেগম কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন সত্যের বিচার চায় তিনি।

বিষয়টি নিয়ে আদালতে মামলা হয়েছে আদালতে মামলা সূত্রে একাধিক গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়েছে, সংবাদ প্রকাশ হলেও এখনো পর্যন্ত টনক নড়েনি থানা কর্তৃপক্ষ কিবা প্রশাসনের উদ্বোধনী ও কর্মকর্তা। এখনো আদালতের আদেশ অমান্য আসামীদেরকে গ্রেফতার না করে লুকোচুরি খেলছেন থানা পুলিশ । অন্যদিকে সেকেন্দার আলী বেপারী সন্ত্রাস বাহিনী ও তার দুই ছেলে এমদাদুল ও ইব্রাহিম মামলার বাদীকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য দিনের পর দিন প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছেন বলে অভিযোগ উঠেছেন। এই সন্ত্রাস বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন অর্থ গ্রামবাসী।এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মুলাদীতে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে রক্তের বন্যা বয়ে গেছে তাই আজও পর্যন্ত আসামিদের গ্রেপ্তার হয়নি । এই সেকেন্দার আলী বেপারীর সন্ত্রাস বাহিনী কর্মকাণ্ডে দিনের পর দিন বেড়ে চলছে এরা বিদেশে পাঠানো লোভ দেখিয়ে প্রতারণা করা এদের পেশা বেশ কিছু মানুষের টাকা আত্মসাৎ করেছেন এই প্রতারক চক্র । থানা পুলিশের ও বিভিন্ন প্রশাসনের বাহিনীর হাতে প্রতারক চক্র ধরা পড়ে এবং প্রতারক চক্র ধরার জন্য অভিযান চলমান রয়েছে ।

কিন্তু মুলাদীতে এভাবে বিদেশ পাঠানোর কথা বলে প্রতারণা করে যাচ্ছেন এই সন্ত্রাস বাহিনী এবং প্রতারক চক্র এদেরকে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নিকট নিবেদন জানাচ্ছি আইনের আওতায় এনে কঠোর বিচার করা হোক এটাই এলাকাবাসীর দাবি।এ বিষয়ে মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে জানার চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি তাকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হয়। অপরদিকে , বাংলাদেশ মানবাধিকার সংবাদ ও সংস্থা. বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস এন্ড প্রেস সোসাইটির, বরিশাল জেলা কমিটির পক্ষ থেকে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে । কমিটির জেলার সভাপতি জানিয়েছেন বর্তমান মহামারী করোনাভাইরাস কারণে দেশের লকডাউন চলছে এতে সব আদালত বন্ধ আদালত খুললে অবশ্যই আমরা জনস্বার্থে এই প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে মামলা করব। এবং আমরা বর্তমানে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বরাবর প্রতারক চক্র ধরার জন্য লিখিতভাবে অভিযোগ দিচ্ছি অবশ্যই খুব শিগগিরই প্রতারক চক্রকে আটক করবেন প্রশাসন।

চলমান, বিস্তারিত তৃতীয় পর্বে আসবে…

Check Also

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ ও সেই অভিভাবককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মন্ত্রণালয়ে

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহার ও অভিভাবক মীর সাহাবুদ্দিন টিপুর ফাঁস হওয়া …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *