Breaking News
Home / জাতীয় / নীলফামারী জেলা আইনজীবি সমিতির নির্বাচন সুষ্ঠ্যু ভাবে সম্পন্ন

নীলফামারী জেলা আইনজীবি সমিতির নির্বাচন সুষ্ঠ্যু ভাবে সম্পন্ন

 

নীলফামারী প্রতিনিধি :

নীলফামারী জেলা আইনজীবি সমিতির নির্বাচন সুষ্ঠ্যভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এতে বিএনপির প্রার্থীরা বেশীর ভাগ জয়লাভ করেছে। রবিবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত বিরতীহীন ভাবে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয় জেলা আইনজীবি সমিতির সম্মেলন কক্ষে। ১শ’৮১ ভোটারের বিপরীতে ৮ পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দিতা করেন ৩৪জন প্রার্থী। সকাল থেকে প্রচন্ড হিমেল হাওয়া ও প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে আদালত প্রাঙ্গনে উপস্থিত হয়ে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। বেলা গড়ার সাথে সাথে আইনজীবি সমিতি ভবনের সামনের দিকে ভোটার ও প্রার্থীদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ করার মত। প্রার্থীরাও ভোটারদের সাথে উৎসব মূখর পরিবেশে ভোট দাবী করেন ভোটারদের কাছে। ১শ’৮১ ভোটারের মধ্যে মোট ১শ ৭০ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। ভোট গ্রহন শেষে ৩০ মিনিট দুপুরের খাবারের বিরতী শেষে শুরু হয় ভোট গননা। রাত পৌনে ৯টায় ভোটের ফলাফল প্রকাশ করা হয়। এতে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মমতাজুল হক ১শ’ ১৩ ভোট পেয়ে বে-সরকারী ভাবে সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ›দ্বী প্রার্থী বিএনপির এ্যাডভোকেট আব্দুল ওহাব চৌধুরী ভোট পান ৪৩ ভোট। সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নীলফামারী পৌর জামায়াতের আমীর ও নীলফামারী জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সভাপতি আব্দুল লতিফের ছেলে আল ফারুক আব্দুল লতিফ ৬৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›িদ্ব ৬৩ ভোট পায় আওয়ামীলীগের এ্যাডভোকেট বাবু অক্ষয় কুমার রায়। সহঃসভাপতি হিসাবে আওয়ামী লীগের এ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম ১শ’৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। নিকটমতম ৫৪ ভোট পায় আওয়ামী লীগের এ্যাডভোকেট বাবু তারিনী মোহন অধিকারী। সহঃসাধারণ সম্পাদক পদে পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আল মাসুদ চৌধুরী ৫৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম ৪৯ ভোট পায় বিএনপির কাজী ফয়েজ-উল হক শিশির। বিএনপি নেতা এ টি এম ফেরদৌস আলম ৮৮ ভোট পেয়ে কোষাধ্যক্ষ নির্বাচিত হয়। নিকটতম আওয়ামীলীগের আবুল কালাম আজাদ পায় ৪৩ ভোট। লাইবেরী সম্পাদক হিসাবে বিএনপির এ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তফা সজীব ১শ’ ১৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। নিকটতম আওয়ামীলীগের কামরুজ্জামান শাসন ৪৯ ভোট পায়। ধর্ম ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক পদে জামায়াতের এ্যাডভোকেট আনিছুর রহমান আজাদ ৭৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম বিএনপির এ্যাডভোকেট হুজুর আলী ৪২ ভোট পান। এছাড়াও সদস্য পদে ১১ জন প্রার্থীর মধ্যে নির্বাচিত হয়- আওয়ামীলীগের এ্যাডভোকেট মুজাক্কির বিন মর্তুজা (দূর্লভ চৌধুরী) ১২৬ ভোট,জামায়াতের এ্যাডভোকেট মু. মামুনুর রশিদ পাটোয়ারী ১১৩ ভোট,বিএনপির এ্যাডভোকেট মালা জেসমিন ১০৭ ভোট,আওয়ামীলীগের এ্যাডভোকেট আফতাবুজ্জামান বিপ্লব ১০৪ ভোট,জামায়াতের এ্যাডভোকেট জুলফিকার আলী ভুট্রু ৯৯ ভোট,আওয়ামীলীগের আল বরকত হোসেইন ৯৯ ভোট এবং জামায়াতের এ্যাডভোকেট আকবর হোসেন ৮৫ ভোট পেয়ে সাধারণ সদস্য নির্বাচিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নব নির্বাচিত সভাপতি এ্যাডভোকেট মমতাজুল ইসলাম বলেন, সুষ্ঠ্যু ও নিরপেক্ষ ভোটের মাধ্যমে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তাদেরকে নিয়ে আইনজীবিদের কল্যাণে কাজ করতে চাই। পৌর জামায়াতের আমীর ও নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আল ফারুক আব্দুল লতিফ বলেন,নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে ইসলাম ও জাতীয়তাবাদী শক্তির পক্ষে নিরঙ্কুশ বিজয় হয়েছে। আমরা সবাই মিলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আইনজীবিদের উন্নয়নে কাজ করতে চাই।

Check Also

মেয়র’র মাতার রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া

নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার সাবেক পৌর চেয়ারম্যান প্রয়াত আলী আহাম্মেদ চুনকার সহধর্মিণী ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *